নতুন নতুন ভালোবাসার গল্প ও কবিতা পেতে আমাদের পাশেই থাকুন।

story:- #সিনিয়র আপু।

(নতুন একটা গল্প দিচ্ছি আসাকরি ভালো লাগবে)
#story:- #সিনিয়র আপু।
part:- 01
writee: লাল সীমানা লাল
*
*
প্রথমেই আমার পরিচয় দিয়ে দেই, আমি মনির অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র, লেখাপড়ায় খুব ভালো না হলেও ততোটা খারপো না তবে একদিক দিয়ে আমি ফাস্ট ক্লাস ফাস্ট। আমার চেয়ে বেশি শয়তানি আর কেউ করতে পারবে না। বাপ মায়ের ছোট সন্তানতো তাই আদরটাও বেশি পাই আর বাদরও হয়েছি সেই হিসেবেই। আরে এটা কি করছি আমার খারাপ দিক আমি নিজেই বলছি, আপনারা আবার বিশ্বাস কইরেন না আমি ঢপ মারলাম। এখন গল্পে আসি।
'
অনেক উত্তেজনার একটা দিন আজ আমার কাছে কারন আজ আমার ভার্সিটি লাইফের প্রথম দিন, সেই ছোটবেলা থেকেই অনেক স্বপ্ন আমার ভার্সিটিতে জামু একটা প্রেম করমু, গার্ল ফ্রেন্ডরে নিয়ে পার্কে হাত ধরে জামু, আহা,এসব কথা ভাবতেই কেমন যেনো খুশি খুশি লাগতেছে। আমার ভাবনায় শুধু ভার্সিটির সুন্দর সুন্দর ময়দা সুন্দরিরা। আমি এসব ভাবছি এমন সময় মা আমার রুমে আসলো,
'
=> এই শয়তান তুই কি করছিস এখানে?
=> কিছু নাতো আম্মু, এমনি শুয়ে আছি।
=> এতো খুশি খুশি লাগতেছে কেনো তোকে?
=> কোই আম্মু নাতো।
=> জানিতো, যেকোনো শয়তানি বুদ্ধি এখন তোর মাথায় ঘুরতেছে।
=> আম্মু তুমি এটা বলতে পারলা?? আমি তোমার অনেক ভালো ভদ্র ছেলে না?=> হ্যা জানিতো তুই আমার সেই ভদ্র ছেলে। তোর জন্যইতো প্রায় প্রায় মানুষের কথা শুনতে হয় আমাদের।
=> আমিতো কিছু করিনা ওরা ভুল ভেবে আমার নামে নালিশ করে।
=> তোকে আর বলতে হবেনা আমি সেটা ভালো করেই জানি। আর শোন,
=> জ্বি আম্মু বলো।
=> আজ প্রথম ভার্সিটিতে যাচ্ছিস, কোনো রকমের শয়তানি করবি না, সিনিয়রদের সম্মান দিবি।
=> তোমায় বলতে হবে না আম্মু,আমি অনেক ভদ্র হয়ে থাকবো।
=> একই কথা তুই কলেজ লাইফেও বলেছিস আর ,,,,,,,,,,,,,
=> আম্মু তোমার ছেলে কে তুমি এভাবে বলতে পারলা?
=> এই তুই কি আমাদের মান সম্মানের কথা একটু ভাবিস না?
=> কেনো ভাববো না আম্মু অবশ্যই ভাবি।
=> তাহলে এরকম শয়তানি কাজ করিস কেনো।
=> আচ্ছা ঠিক আছে এই বললাম আজ থেকে আর কোনো দুষ্টুমি করবো না, ভদ্র হয়ে থাকবো, এবার ঠিক আছে।
=> যদিও মুখে বলতেছি ঠিক আছে কিন্তু মন থেকে সায় দিচ্ছে না।
=> আম্মু তুমি এভাবে বলতে পারলা,
=> হয়েছে এখন বেশি কথা না বলে খেতে আয় খেয়ে ক্লাশে যা।
=> আচ্ছা তুমি যাও আমি আসতেছি।
'
আম্মু চলে গেলো। আমি বুঝতে পারি না সবাই আমার নামে বাসায় বিচার দেয় কেনো। আচ্ছা ভাই আপনারাই বলেন আমি না হয় কলেজ প্রিন্সিপালের মেয়েকে একটা লাভ লেটার আর একটু হাতটা
ধরছি এটা কি কোনো দোষ হলো? পাশের বাসার রহমত আংকেলের গাছ থেকে না হয় দুইটা গোলাপ নিয়ে গিয়ে ওনার মেয়ে রুমাকে প্রেমের প্রস্তাব করেছিলাম, এটা কি কোনো দোষের কথা আপনারাই বলুন। আমার মতো একটা ডিছেন্ট ছেলের নামে ওরা এই অপবাদ গুলা কিভাবে লাগায়, আসলে আমায় সবাই জেলাস করে এই জন্যই এরকম ছোট কাহিনি নিয়ে ওরা আমার বাসায় বিচার নিয়ে আসে। না আর এভাবে থাকা যাবে না চলেন প্রথম ভার্সিটি আজ একটু তারা তারি যাই। আমি গিয়ে রেডি হয়ে খেয়ে রহনা দিলাম ভার্সিটির উদ্দেশ্যে। আজ প্রথম দিন তাই একটু ভদ্র হয়েই গেলাম। আমার চেয়ে ভালো আর ভদ্র ছেলে এই ভার্সিটিতে একটাও নেই এমন ভাব নিলাম। ভার্সিটির সামনে গিয়ে নিজেকে অনেক গর্বিত মনে হচ্ছে। আমি নিজেই নিজেকে সাব্বাস দিলাম। বিসমিল্লাহ বলে ডান পা টা দিলাম কলেজের ভেতর। আহা কি ভালো লাগছে। সব কিছু পূরন হইছে এখন একটা মাইয়া মানুষ পাইলেই হয় কিন্তু ওটা এখন করা জাবে না এখন এমন ভদ্র হয়েই কয়েকদিন থাকতে হবে। আমি ভেতরে যাচ্ছি এমন সময় একটা মেয়ের ডাক শুনলাম।আমি ডানদিকে তাকিয়ে দেখি একদল মেয়ে নামক ছেলে আমায় ডাকছে। মেয়ে নামক ছলে বলতে মানুষটা মেয়ে কিন্তু আচার ব্যবহার দিয়ে মনে হচ্ছে ছেলে। আমি ভয়ে ভয়ে কাছে গেলাম।
'
=> আসসালামু আলাইকুম আপু।
=> ওয়ালাইকুম সালাম, নাম কি?
=> জ্বি আমি মনির।
=> ফাস্ট ইয়ার?
=> জ্বি আপু।
=> আচ্ছা ঠিক আছে যা, আর শোন আমরা তোর সিনিয়র, সেকেন্ড ইয়ারে পড়ি, আমাদের দেখলে সম্মান দিবি।
=> জ্বি আপু।( খারা কয়েকদিন যেতে দে তারপর দেখ কে কাকে সালাম দেয়, মনে মনে বললাম)
'
আমি ওখান থেকে চলে আসলাম। তবে মেয়েকে এরকম হলে কি হবে দেখতে কিন্তু একদম ঝাক্কাস হুরপরী। কিন্তু বড় আপু হয় তাই নজর দেওয়া যাবে না, না হলে আবার সিবালোভা কেমাতো রোগ ধরবে আমায়। আমি আর বেশি কিছু না ভেবে ভেতরের দিকে গেলাম। সোজা ক্লাশে গিয়ে ঢুকলাম। ওরে মামা কি সুন্দর সুন্দর ফুলটুসি বসে আছে। কোনটারে ছাইরা কোনটারে দেখবো, খুশির ঠেলায় আমারতো একদম করুন অবস্থা। না থাক আজকে আমি একদম ভদ্র ছেলে, এগুলার দিকে তাকানো আজকে আমার জন্য হারাম, তোরা থাক কয়েকটা দিন যাক তারপর তোদের হালাল করবো। কিন্তু ভার্সিটিতে আমি একা, তাই আগে ফ্রেন্ড বানাতে হবে। দেখতে পেলাম মাঝে বেঞ্চে একটা ছেলে একাই বসে আছে। যদিও এখনো ফ্রেন্ডশিপ হয়নি তবে মুখ দেখে বুঝতে পারলাম এই শালা আমার মতোই হারামি আছে, কিভাবে যেনো মেয়েদের দিকে তাকাচ্ছে। কিছু না বলে সোজা ওর পাশে বসলাম।
'
=> হাই, আমি মনির।
=> ও হাই আমি মিনহাজ।
=> তো কেমন আছো?
=> ওই আমি কি তোর গার্লফ্রেন্ড হই নাকি তোর........ যে আমায় তুমি করে বলতেছিস, আমরা ফ্রেন্ড সো ডিরেক্ট তুই।
=> বাহ! তোর সাথেই আমার জমবে।
=> ফ্রেন্ড?
=> ফ্রেন্ড মানে? বেস্ট ফ্রেন্ড? তুই আর আমি এক সুতোয় গেথে গেলাম।
'
এমন কথাতে ও আমার দিকে একটু তাকালো, ও মনে হয় বুঝতে পারছে যে ওর থেকে আমিও শয়তানিতে কম যাই না। হয়ে গেলাম বেস্ট ফ্রেন্ড। পরে আরো কয়েকজনের সাথে পরিচয় হলো। যাইহোক ভালোই একটা ফ্রেন্ড সার্কেল হলো।
'
=> এই মনির দেখ সামনের মেয়েটা কি সুন্দর।
=> আজকের দিনে এসব আমার জন্য হারাম, তাই দেখতে ইচ্ছা করলেও দেখতে পারবো না।
=> কেনো?
=> আম্মু বলেছে প্রথম দিন কলেজে যাচ্ছিস তাই একটু ভদ্র হতে তাই আজকে আমি ভদ্র ছেলে।
=> এহ! আসছে কি ভদ্র রে, শয়তানের বাপ তুই।
=> এই এটা তুই কিভাবে বুঝলি।
=> বন্দু রতনে রতন চেনে শুয়রে চেনে কচু, তাই শয়তানে শয়তানরে চেনে।
=> এই এটা কিন্তু তুই একদম ঠিক বলছিস।
=> বাদ দে মেয়ে দেখ আর স্যার আসছে ক্লাশ কর।
'
প্রথম দিনের ক্লাশতো তাই সেইভাবেই হলো। ক্লাশ শেষ করে আমি আর মিনহাজ বাইরে আসলাম।
'
=> এই মিনহাজ আজ আর ক্যাম্পাসে দেরি করবোনা, আজ তারাতারি বাসায় চলে যাবো।
=> কেনো রে প্রথম ভার্সিটি একটু মজা করবি না?
=> না, আজকে আমি ভদ্র পোলা।
=> আচ্ছা ঠিক আছে যা।
=> আচ্ছা বাই, কালকে দেখা হবে।
=> আচ্ছা ঠিক আছে।
'
আমি ওকে বিদায় দিয়ে বাসায় চলে আসলাম। বাসায় কলিং বাজাতেই আম্মু দরজা খুলে দিলো।
'
=> আরে আমার লক্ষি ছেলে চলে আসছে, আসো বাবা আসো।
=> হ্যা আম্মু আসছি,
=> তা আজকে কোনো বিচার আসবে না বাসায়?
=> কেনো আম্মু?
=> না তুই যেখানেই যাস সেখান থেকেই নতুন কিছু ঘটনা উৎঘাটন করিস আর আমাদের সেটা পরখ করতে হয় তাই জিজ্ঞাসা করলাম।
=> আম্মু আমি তোমার ভদ্র ছেলে না? তুমি আমার আম্মু হয়ে এভাবে বলছো?
=> ন্যাকামো বাদ দিয়ে যা ফ্রেশ হয়ে আয়।
'
না আজকাল আর একটু কান্না করেও আমার মাকে ব্লাকমেইল করতে পারি না। এখন নতুন কিছু ভাবতে হবে। আমি গিয়ে ফ্রেস হয়ে খেয়ে রুমে গেলাম। রুমে শুয়ে শুয়ে শুধু ফুল্টুসিদের কথাই ভাবছি। না কাল থেকেই আমার মিশন শুরু করতে হবে। একটু বাইরে গিয়ে ঘুরে সন্ধায় বাসায় আসলাম। বাসায় এসে খেয়ে ঘুমিয়ে গেলাম। পরেরদিন সকালে এসে আম্মুর ডাক,
'
=> এই মনির তোর ক্লাশ কয়টায়?
=> দশটায়।
=> তো ক্লাশে যাবি কখন ১১ টায়? সারে নয়টা বাজে।=> কি বলো আম্মু আগে বলবানা।
'
আমি লাফ দিয়ে বিছানা থেকে উঠে তারাতারি ফ্রেস হয়ে ভার্সিটির দিকে দিলাম দৌড়। ভার্সীটির গেটে গিয়ে ভেতরে ঢুকবো এমন সময় হিট্টিস,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,
*
*
*
চলবে,,,,,,,,,,,,,,,,
কেমন হচ্ছে জানাবেন। ভালো লাগলে সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ
Share:

No comments:

Post a Comment

Search This Blog

Labels

Blog Archive

Recent Posts

Label