নতুন নতুন ভালোবাসার গল্প ও কবিতা পেতে আমাদের পাশেই থাকুন।

পিচ্চি_বউ

#পিচ্চি_বউ

লেখক----Marazul Islam(Sagar)
#পর্ব_৬

সিফাত----- মা,, তুমি সারাদিন এই গুলো বলো কেন?  আমার একদম ভালো লাগে না।
মা----- আচ্ছা তুই যাবি না। ঠীক আছে। তোর খালাকে তুই ফোন করে, না করে দে--

সিফাত--- আসলে খালা আমাকে খুব ভালোবাসে। খালাকে কোন কিছু না করা, আমার পক্ষে সম্বভ না।আর সেটা মা ভালো করে জানে। সেই কারনে এবার খালাকে আমার পিছে লাগিয়েছে।মা আমি যাইতে পারি, শর্ত হল বিয়ার ব্যাপারে আমাকে কোন জর করতে পারবে না।

মা--- ঠীক আছে বাবা,, মা মিন মিন করে বলছে।আমার কপালে
নাতি,নাতীন তো দূরের কথা। ছেলের বউ মনে হয় দেখা হবে না

সিফাত শুধু পাইচারি করছে। একবার এদিক,একবার সেদিক।
মাথার ভিতর একটাই চিন্তা, রিমির কি হল? ওরা কি এসেছে?
নাকি বিয়াটা হয়ে গেল? কি ভাবে খবর নিব?  দূর সিহানকে বলি। ফোনটা হাতে নিয়ে সিহানের কাছে ফোন দেয়।

সিফাত-----হ্যালো সিহান,দোস্ত আমার। একটা উপকার কর না।
প্লিজ দোস্ত
সিহান -----আরে, সিফাত এমন ভাবে বলিস কেন?
সিফাত----- দোস্ত,, আমার তো--- রিমিকে খুব পছন্দ।
সিহান-- কোন রিমি??
সিফাত-- আরে ওই সিংগাম লাগাইছিল
সিহান ---- সালা গরধব,, অন্য কোন মেয়ে পেলি না
সিফাত ---আরে দোস্ত,, প্রেম কি এতো কিছু ভেবে আসে? 
সিহান---- আমি তো এতো কিছু বুজি না।। কি করতে হবে এটা বল
সিফাত--- তুই রিমিদের বাড়িতে যাবি। রিমিকে কারা যেন দেখতে আসবে।ওরা এসে যদি রিমিকে আংটি পরায়?  তাহলে তো আমি শেষ। তুই যে ভাবে হক, ওদের আটকাবি।
আমি মাকে বুজিয়ে,, একটা কিছু করব।

সিহান---- ঠীক আছে, তুই চিন্তা করিস না। এটা আমার এক চুটকিতে হয়ে যাবে। তুই শুধু ঠীকানাটা দে।

সিফাত------ আমি বলছি------------ উল্লাপাড়া-সলংগা.......

সিহান--- ওকে।।।
সিহান বাইক নিয়ে সাথে আরো দুইজন বন্ধু সহ রিমিদের এলাকায় যায়।

এদিকে সিফাত বিষন্ন মন নিয়ে, মা,খালার সাথে পাত্রী দেখতে যায়। আর মাঝে মাঝে সিহানের  কাছে ফোন করে জানতে চায়-+সিফাত, ওরা কি এসেছে?

এদিকে মা, তার ছেলের অস্বাভিক আচরণ দেখে বেশ চিন্তায় পরে যায়।খালাও বার বার খিয়াল করছে। সিফাত অন্য কোন খিয়ালে।
সিফাতকে পাত্রি দেখাতে যায়,, সবাই মেয়ে দেখার জন্য বসে
আছে

। কিন্তু সিফাত,, একদম এখানে খিয়াল নেই। বারবার বাহিরে যায় আসে,,,
মা চিন্তা করছে, কি হল সিফাতের?ছেলেটাকে নিয়ে আর পারি না।
এদিকে মেয়ে লাল টুক টুক শাড়ী পরে হাজির। সাদসমাটা একটা মেয়ে। মেয়েটা খুব সুন্দরী। মেয়ের বাবা বেশ টাকা পয়সা ওয়ালা সব দিক মিলে, মেয়েটিকে খিব পছন্দ হয় সিফাতের মায়ের। সিফাতের মা,,সিফাতের জন্য অপেক্ষা করছে।
কিন্তু সিফাত বাহিরে ব্যস্ত ফোন নিয়ে। কয়েকবার ডাকও দিয়েছে। সিফাতেরর কোন সারা নাই,
সিফাতের মা কিছুক্ষণ সিফাতের জন্য অপেক্ষা করে।
নিজেই সিদ্ধ্যান্ত নেয় যে, এই মেয়েকেই তার ছেলের বউ করবে।
সিফাতের মার ধারণা, সিফাত তার অবাধ্য ছেলে না।
মেয়েটির নাম--নিলি। নিলির হাতে আংটি পরিয়েদেন সিফাতের মা।


এদিকে,, সিহান অপেক্ষা করছে। রিমি সেই পাত্রপক্ষের। এবং সিফাত ফোনে ফোনে আছে সিহানের সাথে।
সিহান জানালো এই মাত্র, কিছু লোক দেখা যাইতেছে।
মনে হয় এরাই হবে,, সিহানরা তিন বন্ধু মিলে তাদের পথ অবরোধ  করে। এবং তাদের পরিচয় জানতে চায়, কেন এসেছে
সেটাও জানতে চায়?
তারা জানায় পাত্রী দেখতে এসেছে। সিহান জানায় তাদের,পাত্রী তো বিয়া হয়ে গিয়েছে। আমার বন্ধুর সাথে। কিন্তু তারা তাদের পরিবারকে জানাতে পারে নাই। প্রথমে তারা বিশ্বাস করতে চায় নাই। কিন্তু সিহান তাদের শেষমেষ ভয় দেখিয়ে তারিয়ে দেয়।
এদিকে রিমির মা, বড় যত্ন করে রান্না করেছেন। মেয়ে রিমিকে খুব দারুন করে সাজিয়েছে। অপেক্ষা করছে। কিন্তু সময় পার হয়ে যায়। তাদেরর কোন খবর নাই।

 সিফাত খুশি মনে যখন, তার মায়ের কাছে আসে। দরজায় দাড়িয়ে অবাক হয়ে যায়। নিলিকে তার মা কাছে বসিয়ে। বউমা বউমা বলে ডাকছে। এটা দেখে সিফাতের মাথা পুরাই হিট হয়ে যায়। সিফাতের মা, সিফাতকে ডাক দিয়ে বলে,, সিফাত এদিকে আয়। তোরা দুজন একটু পাশাপাশি বস, আমি দেখি তোদের কেমন লাগে?  সিফাত যেন হঠাৎ নিরব দর্শক হয়ে যা।
কি করবে?
এদিকে,, রিমির বিয়ে ভেংগে তো একটা ক্ষতি করছি।
এখুন যদি রিমিকে  বিয়া করতে না পারি???
দূর কিছুই ঢুকছে না।
নিরবে সব কিছুই চোখের সামনে ঘঠে যাইতেছে। আর চুপচাপ সবার আদেশ পালন করছি।নিলি বেশ খুশি। আমার সাথে এমন আচারণ করছে যেন আমরা ছোট বেলায় থেকে পরিচিত। আর মা,, তার খুশি কে দেখে? 

সবাই খুশি, শুধু আমি না। আমার চিন্তা শুধু রিমিকে নিয়ে।

এর মাঝে রিমির মা অপেক্ষা করতে করতে সময় পেরিয়ে গেল।
কিন্তু ছেলে পক্ষের কোন খবর নাই। শেষে ফোন করে রিমির মা,, ছেলে পক্ষের কাছে।
তারা জানায় আপনের মেয়ে ভালো না। ভাগ্য ভালো,আমরা আপনেদের বাড়িতে যাই নাই। এই ছোট একটা মেয়ে, সে নাকি গোপণে বিয়া করেছে। এই কথা শুনে তো রিমির মার মাথার উপর আকাশ ভেংগে পরার মত।।।

চলবে,,,,,,,,,
Share:

No comments:

Post a Comment

Search This Blog

Labels

Blog Archive

Recent Posts

Label