নতুন নতুন ভালোবাসার গল্প ও কবিতা পেতে আমাদের পাশেই থাকুন।

বিয়ে ছাড়া বউ পার্টঃ ১ Bhalobhasar Golpo Biye Chara Bow


বিয়ে ছাড়া বউ
পার্টঃ ১
Bhalobhasar Golpo Biye Chara Bow
 লেখক : সিয়াম হোসেন

সকালে মনের আনন্দে ঘুমিয়ে আছি । হঠাৎ ফোনের আওয়াজে ঘুমটা ভেঙে গেলো ।

কানের কাছে ফোনটা নিয়ে কিছুক্ষন কথা বলে ফালদিয়ে উঠলাম বিছানা থেকে । উঠার সাথেই আম্মু এসে হাজির ।

-কিরে আজকে সূর্য কোন দিক দিয়ে উঠেছে । (আম্মু)
আম্মুর কথাটা শুনে কিছুটা অবাক হলাম । আম্মু আবার অন্ধটন্ধ হয়ে গেলো নাকি । সূর্য উঠেছে কিনা সেটা জিজ্ঞাসা করছে । আমি কি ঠিক শুনেছো ।
-কিরে বললি না যে । (আম্মু)
না এবার নিশ্চিন্ত আমি ঠিকই শুনেছি । তাই কথা মতো বাইরে তাকালাম ।
-কেনো আম্মু আজকে তো সূর্য এখনও উঠে নি বাইরে কুয়াশা । তুমি আবার অন্ধ হয়ে গেলে নাকি । (আমি)
-মানে ।
-তুমি জিজ্ঞাসা করলে সূর্য কোন দিক দিয়ে উঠেছে তাই বললাম অন্ধ হয়ে গেছো সেই জন্য দেখতে পাচ্ছো না । (আমি)
-চুপ বেয়াদপ এতো বড় হয়ে গেছিস তারপরও বাঁদরামি গেলো না (আম্মু)
-যা বাবা আমি আবার কি করলাম তুমি তো জিজ্ঞাসা করলে (আমি)
-চুপ । আমি বলতে চেয়েছি আজকে এতো তাড়াতাড়ি কি মনে করে বিছানা থেকে উঠলি । (আম্মু)
-ও এই কথা তা ভালো ভাবে বললেই তো পারতা আমি আরও মনে করলাম ....(আমি)
-থাক বাদ দিয়ে এখন বল (আম্মু)
-আম্মু আমার চাকরি হয়েছে (আমি)
আম্মু দেখি আমার কথাটা শুনে চোখ বড় বড় করে তাকালো ।
-কি হলো এমন করে তাকাচ্ছো কেনো খুশি হওনি (আমি)
-আমি কি স্বপ্ন দেখছি নাকি (আম্মু)
- স্বপ্ন মানে (আমি)
-দেখ বাবা মিথ্যা বলা মহা পাপ এমন মিথ্যা কথা আর বলিস না এই পর্যন্ত ৩৫ বার চাকরির কথা বলেছিস কিন্তু একবারও হয়নি । (আম্মু)
-যা আমি আবার মিথ্যা কখন বললাম সত্যি আমার চাকরি হয়েছে । (আমি)
-আমার মনে হয় তোর ঘুম হয়নি যা আর একটু ঘুমিয়ে নে দেখবি সব ঠিক হয়ে গেছে । (আম্মু)
আম্মু কথাটা বলেই বেড়িয়ে গেলো । যা শালার সত্যি কথার কোনো ভাত নাই‌। চাকরির কথা বলতেই উল্টা পাল্টা কথা বলে চলে গেলো । আসলে বলারই কথা এই পর্যন্ত ৩৫ বার চাকরি হয়েছে কিন্তু কোনো না কোনো কারণে বাদও হয়ে গেছি । এই যেমন প্রথম যখন চাকরি পেলাম তখন কার ঘটনা ।

নতুন চাকরি তাই একটু সুন্দর করে সেজে বাসা থেকে বের হলাম । যাবার সময় আম্মুও অনেক দোয়া করে দিলেন । মনের আনন্দে রাস্তা দিয়ে হাটছি । ভাবলাম প্রথম দিন দেড়ি করে যাওয়া যাবেনা তাই একটা বাসে উঠে পড়লাম । বাসটা কিছুদূর যাবার পরেই গেলো চাকাটা বাস্ট হয়ে ব্যাস কি করার । বাস থেকে নেমে কিছুদূর হাটলাম একটা বাসও আর আসছে না যে যাবো । কিছুক্ষন বাদে একটা অটো দেখতে পেয়ে সেটাতেই‌ উঠে পড়লাম । জানিনা অটো ড্রাইভার ভিতু কিনা সাহসী এমন ভাবে চালাচ্ছে যেনো মনে হচ্ছে মাল গাড়িতে উঠেছি । ভাবলাম নেমে যাই কিন্তু নামলে আবার গাড়ি যদি না পাই সেটা আর এক সমস্যা কোনো মতে পৌছে গেলাম অফিসে এসে দেখি পাক্কা ৩৫ মিনিট লেট । অফিসে পা দেবার সাথেই বসের ডাক । গেলাম তারপর কিছুক্ষন ভাষণ ছাড়লেন
- প্রথম দিনেই কেনো এতো দেড়ি জানি না পরে আরও‌ কতো দেড়ি করবে । ভাষণ শুনে তো মাথাটা গরম হয়ে গেলো ।
-নিকুচি করি আপনার চাকরির চললাম । (আমি)
কথা গুলো বলেই সেখান থেকে বেড়িয়ে এলাম । এরপর বাদ বাকি চাকরি গুলোও নানা ভাবে নষ্ট হয়ে গেছে । যাই হোক এখন কার কথায় আসি ।
এইবার যেই চাকরিটা পেয়েছি তার জন্য ঢাকায় যেতে হবে । তাই এবার আর কোনো গড় মিল করা যাবে না । ফ্রেশ হয়ে নাস্তার টেবিলে এলাম ।

-আম্মু ক্ষুদা লাগছে খেতে দাও (আমি)
-কি বেপার নবাব আজকে এতো সকাল করে ঘুম থেকে উঠেছে । (আব্বু)
- ওই আমার চাকরি হয়েছে সেখান থেকে ফোন দিয়ে ছিলো তাই মনটা খুশিতে লাফাচ্ছে । (আমি)
-তা এটা নিয়ে কয়টা চাকরি হবে । (আব্বু)
-হবে যেই কয়টাই হোক । আব্বু আমাকে কিছু টাকা দিও ঢাকায় যাবো (আমি)
-ঢাকায় কেনো (আব্বু)
-আরে চাকরি হয়েছে বললাম না সেই জন্য ওখানে গিয়ে বাসা নিতে হবে তার জন্য যেই টাকা লাগবে সেটা দাও (আমি)
-সত্যিই ঢাকা যাবি (আব্বু)
কি বেপার আব্বু আমার ঢাকা যাওয়ার কথা শুনে এতো খুশি হলো কেনো ।
-হ্যা কিন্তু তুমি আমার ঢাকা যাওয়ার কথা শুনে এতো খুশি হলে কেনো । (আমি)
-না তুই যদি ঢাকায় যাস তাহলে একটু শান্তিতে থাকতে পারবো এমনি তেই‌ যে জ্বালানো জ্বালাস (আব্বু)
-হুমম বুঝছি আর বলতে হবে না । (আমি)
নাস্তা করে বাইরে আসলাম‌।
এইযা এখনও তো পরিচয়টাই দিলাম না । যাই হোক এখন দিয়ে দেই ।
আমি সাব্বির পড়ালেখা শেষ করে চাকরির জন্য ঘুরছি । আর আব্বু আম্মুতো আমাকে সেই‌ মাপের বিশ্বাস করে দেখলেন না সকালে বললাম চাকরি হয়েছে কি বিশ্বাসটাই না করলো ।

বাইরে এসে দেখি নোমান (আমার বন্ধু) মনমরা হয়ে বসে আছে ।

-কিরে মন খারাপ কেনো । (আমি)
-ও তুই ।
-হুমম মন খারাপ কেনো । (আমি)
-আর বলিস না ফারিয়ার সাথে আবারও ব্রেকআপ ‌হইছে । (নোমান)
-ও চিন্তা করিস না ঠিক হয়ে যাবে এর আগেও তো হয়েছে এমন তাই না । (আমি)
-হুমম কিন্তু এবার একটু বেশিই বাড়াবাড়ি হয়ে গেছে মনে হয় সহজে ওর রাগ ভাঙবে । (নোমান)
-ঠিক আছে চিন্তা করিস না আমার সাথে ঢাকায় চল । (আমি)
-পাগল নাকি আমি কেনো তোর সাথে ঢাকায় যাবো আর তুই ঢাকা গিয়ে কি করবি । (নোমান)
-আরে আমার চাকরি হয়ে গেছে সেই জন্য ঢাকায় যেতে হবে তুইও চল যদি তোরও  চাকরি হয়ে যায় । (আমি)
-ভাই এবার দিয়ে কতবার বলছিস তোর চাকরি হয়েছে প্রতিবারই কোনো না কোনো কারণে চাকরি নষ্ট হয়ে গেছে এখন আর নতুন করে চাকরির জন্য ঢাকা যাসনা নাহলে শুধু শুধু টাকা গুলা নষ্ট হবে । (নোমান)
-চুপ শালা ভাবলাম নতুন চাকরির কথা শুনে খুশি হবি তা না থাক তুই আমি গেলাম । (আমি)
সেখান থেকে উঠে কিছুক্ষন ঘোরাঘুরি করে বাসায় এসেই দিলাম ঘুম ।
ঘুম থেকে উঠলাম রাতে তারপর খাবার খেয়ে জামা কাপড় গুছিয়ে বিছানা শুতে যাবো তখনই ফোনটা বেজে উঠলো । হাতে নিয়ে দেখি সকালের নাম্বারটা ধরলাম ।‌
-হ্যালো (আমি)
-হ্যা সাব্বির বলছেন ।
-জ্বী
-আসলে আপনাকে ফোন করে বলেছিলাম যে আপনার চাকরি হয়েছে সেই জন্য দুঃখিত আমাদের এখানে সাব্বির নামে আরেকজন আবেদন করেছিলো তো তার কাছে দিতে গিয়ে আপনার কাছে গেছে সেই জন্য আমরা আন্তরিক ভাবে দুঃখিত । (বলেই ফোনটা কেটে দিলো)
কথাটা শুনে আমি হাসবো না কাঁদবো বুজতে পারছি না । এখন যদি আম্মু আব্বুকে বলি তাহলে তো তারা কি বলবে জানি না । কিন্তু নোমান যদি জানতে পারে তাহলে তো হাঁসা হাঁসি করবে । কোনো চিন্তা ছাড়াই ঘুমিয়ে পড়লাম ।
সকালে ঘুম থেকে উঠে বাসা থেকে বের হচ্ছি । তাদেরকে এখনও বলিনি যে চাকরি নেই । জানি না ঢাকায় গিয়ে কি করবো বাসে উঠছি দেখি আব্বু আম্মু আমার দিকে তাকিয়ে আছে ।
-শোন ওখানে গিয়ে কারও সাথে ফাইজলামি করবি না আর ভালো ভাবে কাজ করবি । কাজ করার সময় ছুটি নিবিনা নাহলে চাকরি চলে যেতে পারে । ৬ মাসের আগে বাড়িতেও ‌আসবিনা শুধু শুধু টাকা নষ্ট হবে (আব্বু)
জানি না আব্বু কি বললো তবে এটা নিশ্চিত যে আমি না থাকায় খুশি হইছে । বাসের মধ্য বসে আছি । আর ঢাকা গিয়ে কি করবো সেটা ভাবছি । ধুর এখন ভেবে শুধু শুধু মাথা খাটানোর কোনো মানেই হয়না । এর থেকে ভালো ঘুমিয়ে‌ থাকি ।

চলবে......

হয়তো প্রথম পার্ট তাই ভালো হয়নি তবে পরের পার্ট গুলো ভালো করার চেষ্টা করবো ।
Share:

No comments:

Post a Comment

Search This Blog

Labels

Blog Archive

Recent Posts

Label