নতুন নতুন ভালোবাসার গল্প ও কবিতা পেতে আমাদের পাশেই থাকুন।

new bangla golpo 2020

কয়েক শো কোটি চেহারা বাছাই করার পর যে চেহারার সাথে আমাদের সম্পর্ক তৈরি হয়, সে মানুষটি কক্ষনো এই কথা ভেবে বিচলিত হয়না যে, কেন বা তাকেই একজন মানুষ পছন্দ করলো। পৃথিবীর এক কোণায় বসে ভিন্ন কোণার কোনো একটা মানুষের সাথে প্রেম করাটা সাংঘাতিক কোনো ব্যাপার না। যে প্রেম সাদা কালো ভেদাভেদ করেনা, সে প্রেম আজকাল বিলুপ্তির পথে হলেও কিছু কিছু মানুষের মনে আজও সেই প্রেম বিশাল একটা জায়গা নিয়ে অবস্থান করছে।
.
প্রেমের টানে ব্রাজিলের কন্না বাংলাদেশে আসার সংবাদটা পত্রিকায় খুব বড় করে ছাপানো দেখে বিচলিত হয়েছিলাম। কীভাবে সম্ভব?
বাংলাদেশ থেকে দেওয়া কিসের ইমুটা আমাজান জঙ্গলের পাশে অবস্থানরত কোনো এক মেয়ের বুকের কম্পনটা বাড়িয়ে দেয়া কী সাংঘাতিক মনে হয়না?
.
সাত সমুদ্র তেরো নদী উপেক্ষা করে নীড় খুঁজতে গিয়ে বাংলাদেশকে সিলেক্ট করাটা বিদঘুটে ব্যাপার না হলেও, প্রেমের টানে স্বামী সন্তান ছেড়ে দিয়ে বাংলাদেশের একটা কালো ছেলেকে বিয়ে করা কিন্তু অদ্ভুদ এক ব্যাপার স্যাপার। কী আছে এমন প্রেমে।
.
আমি যে আর্জেন্টিনার মেয়েকে জানতাম তার নাম ছিল  ট্রাস্কি ইন্দ্রালা। মেয়েটা তেমন একটা ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ বুঝতো না বলে স্টিকারের মাধ্যমে আমাদের মধ্যে কথাবার্তা হত। তখন একটা খুব করে ট্রান্সলেট বুঝতাম না। স্টিকারের মাধ্যমে কতদূর এগিয়ে গেছিলাম তারও সঠিক অনুমান নেই। তবে এটা জানতাম মেয়েটা একসময় আমাকে পছন্দ করা শুরু করেছিলো।
প্রায় তিনমাস তার সাথে আমার কথা হয়। এই তিনমাসে আমি বুঝে নিছিলাম তার মনেও প্রেম নামের কিছু আছে। মেয়েটা মদ খেত, নাইট পার্টিতে যেত। আমি একদিন ওকে বলেছিলাম মদ খাওয়া নাইট পার্টিতে যাওয়া তোমার জন্য সুন্দর দেখায় না। ট্রাস্কি বুঝে নিছিলো আসলে ব্যাপারটা আমার পছন্দ না। সেদিন থেকে নাইট ক্লাবে যাওয়া বন্ধ করলেও মদ খাওয়া বন্ধ করেনি।
.
কয়েক শো কোটি মনের পরিবর্তে যে মনটা আমার সাথে মিলেছিল সে ক্যামন ছিল এই ব্যাপারটা তাকে আমি খুব করে জিজ্ঞাসা করিনি। আগে কী করত, কোথায় থাকত এসব প্রশ্ন করে তাকে বিমুখ করিনি কখনো। সত্যি কথা বলতে আমি যে মেয়েকে খুব করে পছন্দ করতাম, তার চেহারা রিলেশনের দুই মাস পর দেখতে পেরেছিলাম। প্রেম হয়ে গলে মানুষ কতটা পাগল হতে পারে, এ হিসাবটুকু আজও আমার অজানার তালিকায় রয়ে গেল। তবে ওর চেহারা মোবাইলের ডিসপ্লেতে ভাসতেই কয়শত চুমু যে খেয়েছিলাম তার কোনো ইয়ত্তা নেই। বে-হিসাব।
.
প্রেম হয়। তবে অজান্তে। একদম নিরিবিলি পরিবেশে।
সবার অগোচরে। একদম একাকী ভাবে।
প্রেম হয়ে গেলে নিরবতা বেশ ভালো লাগে।
রোমান্টিক মুহূর্ত খুঁজা। রোমান্টিক পিকচার খুঁজা। এসব পছন্দের তালিকায় বেশ বড়সড় একটা জায়গা দখল করে রাখে।
.
১৬ কোটির জনতার মধ্যে হারিয়ে যাওয়া ব্যক্তিকে খুব একটা সহজ ভাবে খুঁজে  বের করা যায়না। তবে ১৬ কোটির মধ্যে যে কারোর প্রতি আপনার প্রেম জাগতে পারে। এটার মধ্যে কোনো নিয়ম টিয়ম কাজ করেনা।
.
প্রেম জাগবে। প্রেম আসবে। তবে সবার সামনে যে নিজের প্রেমকে প্রকাশ করতে হবে, ব্যাপারটা আসলে এমন না। আমরা আসলে ভুল তখনি করি, যখন নিজের অজান্তেই ভুল একটা মানুষের সামনে প্রেমকে প্রকাশ করে বসি। প্রেম সস্তা কাঁচামাল না যে, এখানে ৫ টাকার মাল ৩ টাকা বলা যাবে। প্রেম একদম ঔষধের ফার্মেসির মত এখানে কোনো দাম দর চলেনা।
প্রেম পুষে রাখার জিনিস। সস্তা ভাবে বের করার জিনিস নয়।
.
সবার মনে প্রেম থাকে। তবে কারো কারো মনে প্রেমের সাথে লোভ থাকে। প্রেম তাকেই দিন যে দু হাত ভরে প্রেম কুড়ানোর পরও আরো প্রেম পাওয়ার জন্য লোভ না করে। কোনো জিনিসেই অতিরিক্ত লোভ ভালো না।
.
প্রেম পুষে রাখুন নিজ দায়িত্বে, একান্ত নিজের ভাবে, নিজের মনের মত করে। সময় আপনাকে ঠিকই আপনার সঠিক মানুষ চিনিয়ে দিবে, যে আপনার পুষে রাখা প্রেমের যোগ্য। থাকুন না একটু অপেক্ষায়! সঠিক মানুষ চিহ্নিত করার তরে।
.
লেখা,,,দুষ্টু ছেলে আরিয়ান
Share:

No comments:

Post a Comment

Search This Blog

Labels

Blog Archive

Recent Posts

Label