নতুন নতুন ভালোবাসার গল্প ও কবিতা পেতে আমাদের পাশেই থাকুন।

ছোট গল্প:- #Breakup_Day😰😰😰😰

ছোট গল্প:- #Breakup_Day😰😰😰😰


ক্রিং... ক্রিং....  ক্রিং

রাফিঃ হ্যালো মিম??

মিমঃ তোর হিসাব কিতাব শেষ হয়ছে?

রাফিঃ তুমি আমাকে তুই করে বলতেছ কেন?

মিমঃ এখন যদি তুমি করে বলি তাহলে তুই ভাববী তুরে আমি এখনো ভালোবাসি?তাই

রাফিঃ ও।হ্যা আমার হিসাব শেষ হয়ছে।

মিমঃ কত টাকা হয়ছে?।

রাফিঃ চৌদ্দ হাজার নয়শ দশ টাকা।

মিমঃ ওমা এত টাকা কিসের ?আমি কি এত টাকার জিনিস খায়ছি নাকি তুর কাছ থেকে?

রাফিঃ হুম।চায়লে প্রত্যেকটা হিসাব আমি দিতে পারি।ভালোই ভালোই কাল টাকাগুলো নিয়ে আসবা কিন্তু।

মিমঃ ওকে ঠিক আছে।আর তুইও কিন্তু আমার দেওয়া সবগুলো জিনিস নিয়ে আসব?

রাফিঃ ওকে।

ফোনটা কেটে গেল.
রাফি আর মিম গার্লফ্রেন্ড বয়ফ্রেন্ড।একজনের প্রতি একজনের অবহেলা,সময় না দেওয়া,সন্ধেহ এসব নিয়েই তাদের ব্রেকাপ হতে চলেছে।সবকিছুর হিসাব মিটিয়ে তারা মুক্ত হতে চায়।
ব্রেকাপের দিন সকাল 10টায়.....

রাফিঃ হ্যালো তুমি কোথায়?

মিমঃ আসতেছি।কাছেই।

রাফিঃ ওকে।আসো....

কিছুক্ষনপর মিম আসলো।

মিমঃ কত টাকা হিসাব করছিলা?

রাফিঃ চৌদ্দ হাজার নয়শ দশ টাকা।

মিমঃ ওকে।তার আগে আমার দেওয়া জিনিসগুলো ফেরত দাও।

রাফিঃ আচ্ছা।কিন্তু একটা কথা আছে।আমি না তোমার দেওয়া জিনিসগুলোর অনেক কিছু হারিয়ে ফেলেছি।এখন এক কাজ কর।যত গুলো হারিয়ে ফেলেছি বা নষ্ট করছি তুমি ততগুলোর টাকা কমিয়ে দিও।
মিম অনেক খুশি হল।বলতে লাগল তুই আমার কাছ থেকে দুইটা ঘড়ি, তিনটা সানগ্লাস, তিনটা সার্ট, দুই টা পান্জাবি নিছত।

রাফিঃ তুমি সবকিছু হিসাব করে রেখেছ?

মিমঃ রাখবো না।তুই রাখছত কেমনে?

রাফিঃ ওকে বাদ দাও।এখানে কত টাকা হয়েছে?

মিমঃ (কিছুক্ষন পর হিসাব করে)সাত হাজার চারশ টাকা।

রাফিঃ ওকে।তুমি আমার টাকা থেকে সাত হাজার চারশ টাকা রেখে দাও।

মিমঃ ওকে।এই যে নে বাকি টাকা।

রাফিঃ হুম।

মিমঃ এখন আমি যায়।আর একটা কথা আর কোনো দিন আমার সাথে যোগাযোগ করার চেস্টা করবে না।আর আমি ও তুকে সব জায়গা থেকে ব্লক করে দিব। এটা বলেই মিম চলে গেল।

রাফি টাকাটা হাতে নিয়ে রাস্তার পাশে বসে পড়ল।চোখ দিয়ে গড়িয়ে গড়িয়ে পানি পড়লে লাগল।আর পাগলের মতো চিৎকার করে বলতে লাগল
"এত সহজে আমাকে ভুলে গেলা।টাকা দিয়ে ভালোবাসা ফেরত চায়ছ?
বিশ্বাস কর তোমার দেওয়া একটা জিনিস ও আমি হারায়নি।এমন কি তোমার দেওয়া কলমটা দিয়ে এখনো কিছু লিখিনি।যদি শেষ হয়ে যায়।তোমার দেওয়া প্রত্যেকটা জিনিস তুমি পছন্দ করে কিনে ছিলে।তোমার পছন্দ করা জিনিসটা কিভাবে হারাবো?বলো?তোমার দেওয়া ঘড়িটা এখনো আমার সবচেয়ে প্রিয় ঘড়ি।তাই সবসময় তোমাকে মনে রাখার জন্য ঘড়িটা আমি আমার সাথে রাখি।

আমার টাকা ফেরত দে?

রাফিঃ মিম তুমি?

মিমঃ হ্যা আমি।আমার টাকা দে।আর বাড়িতে চল।আমার জিনিসগুলো নিয়ে আসব।

রাফিঃ না।এগুলো আমি দিব না।

মিমঃ দিবি না কেন?

রাফিঃ কারণ এগুলো আমি তোমার কাছ থেকে কিনেছি।

মিমঃ না।আমি বিক্রি করব না।

রাফিঃ তুমি....তুমি এই টাকাগুলোও নিয়ে যাও।তবুও জিনিসগুলো নিও না।

মিমঃ তাহলে অবহেলা কর কেন?ফোন দিলে ফোন ধরো না কেন?

রাফিঃ তুমি যে সময় ফোন দাও।এসময় তো আমি অফিস থাকি।

মিমঃ অফিসে মানে?তুমি না বেকার।

রাফিঃ না।আমি কিছুদিন আগে একটা চাকরি পেয়েছি।তাই অফিসের সময় ফোন ধরতে পারিনা।

মিমঃ না।চল বাড়িতে যাব।

রাফিঃ তোমাকে আমি আরো দশ হাজার টাকা দিব।তবুও তুমি এগুলো নিও না।

মিমঃ আমার কেনা জিনিসগুলোকেই তুমি এত ভালোবাসো?

রাফিঃ হুম।

মিমঃ তাহলে আমাকে বাসো না?

রাফিঃ বাসি তো।অনেক বেশি ভালোবাসি।

মিমঃ তুমি এত বোকা কেন?

রাফিঃ তোমার জন্য।

মিমঃ তোমার কান্না দেখে তো আমিও কেদে দিয়েছিলাম।এভাবে কাদে কেউ?

রাফিঃ কাদবো না।তুমি আমাকে ছেড়ে চলে যাও কেন?

মিমঃ গেলাম কোথায়।ঘুরে এসে পিছনে দাড়িয়ে আছিলাম।

রাফিঃ বাড়িতে যাবে?

মিমঃ না।যাবো না।

রাফিঃ কেন যাবে না?

মিমঃ আমি কি তোমার বিয়ে করা বউ নাকি?

রাফিঃ চল।কাজী অফিসে যায়।

মিমঃ আরে বাবা এত সাহস ?

রাফিঃ হুম।

এই যে ভাই এই লোকটা কার সাথে কথা বল?(আমি)

লোকটাঃ আরে ভাই ও হচ্ছে একটা পাগল।প্রতিবছর ১৪ই অক্টোবর তারিখ এ পাগল এখানে বসে এসব কাহিনী বলে।আমি গত আট বছর ধরে একই কাহিনী শুনতেছি।

আমিঃ ও বার বার মিম নামটা ব্যবহার করছিল।ওটা কে?

লোকটাঃ ওটা পাগলের মনের মানুষ।

আমিঃ ও।

পরে আমি খবর নিয়ে জানতে পারি যেদিন রাফি নামের পাগল লোকটার সাথে মিমের ব্রেকাপ হওয়ার কথা ছিল ওই দিন মিম রাস্তায় রোড একসিডেন্টে মারা যায়।যার পর থেকে রাফি একই জায়গায় অপেক্ষা করছে।শুধু মাএ ব্রেকাপের জন্য।
*******সমাপ্ত***********

এড হয়ে পাশে থাকেন আগামীতে আরো সুন্দর গল্প পাবেন।
Share:

No comments:

Post a Comment

Search This Blog

Labels

Blog Archive

Recent Posts

Label